বুধবার, আগস্ট ১৭, ২০২২

গোটা সড়ক ব্যবস্থাকে নৈরাজ্যের মধ্যে ফেলে দেয়া হয়েছে : ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গোটা সড়ক ব্যবস্থাকে নৈরাজ্যের মধ্যে ফেলে দেওয়া হয়েছে। প্রতিদিন শত শত মানুষ সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারাচ্ছে। গতকাল (২৯ জুলাই) মিরসরাইয়ে দুর্ঘটনায় ১১ শিক্ষার্থী নিহতসহ এমন অসংখ্য নজির প্রতিদিন দেখা যাচ্ছে। শনিবার (৩০ জুলাই) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি।

লোডশেডিং ও জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশের মানুষ বিদ্যুৎ, গ্যাস পাচ্ছে না। আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের অর্থনীতিকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে গেছে। রাজনীতি ও বিচারবিভাগকে ধ্বংসের পর এবার অর্থনীতিকে শেষ করছে। সরকার উন্নয়নের মিথ তুলে ধরে জনগণকে বিভ্রান্ত করছে।

দুর্নীতি, মেগা চুরির কারণে বিদ্যুৎখাতে ভরাডুবি ও লোডশেডিং হচ্ছে এমন মন্তব্য করে তিনি আরও বলেন, বিদ্যুৎ উৎপাদন না করে হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করা হয়েছে। এখন আবার দুর্নীতি করতে নিজস্ব লোকদের দিয়ে বিদেশ থেকে এলপিজি গ্যাস আমদানি করা হচ্ছে।

সরকার পতনের জন্য একদফা আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এ সরকারের কারণে মানুষের কষ্ট হচ্ছে। পতন না হলে মানুষের কষ্ট কমবে না।

বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালাম। সঞ্চালনা করেন দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু।

এ সময় বক্তব্য দেন- ঢাকা উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমানুল্লাহ আমান, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর শারাফাত আলী সপু, যুবদলের সাবেক সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোনায়েম মুন্না, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, বিএনপির সহ-সংগঠনিক সম্পাদক সেলিমুজ্জামান সেলিম, যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মামুন হাসান, ঢাকা দক্ষিণ বিএনপি নেতা নবী উল্লা নবী, ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল প্রমুখ।



Comments are Closed

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: