মঙ্গলবার, জানুয়ারি ৩১, ২০২৩

“রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম নিয়ে কোন ধরনের ষড়যন্ত্র দেশবাসী সহ্য করবে না”

‘সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম বাদ দেয়ার ব্যাপারে চিন্তা ভাবনা আছে’ আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী’র এ ধরনের বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব প্রিন্সিপাল মাওলানা ইউনুছ আহমাদ।

তিনি বলেছেন, রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম একটি মীমাংসিত বিষয়। এ নিয়ে ঘোলাপানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করলে পরিস্থিতি সুখকর হবে না। বাহাত্তুরের সংবিধান ফিরে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই। রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম আছে থাকবে। সরকার ভারতের প্রেশক্রিশন অনুযায়ী মাঝে মাঝে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ধর্ম নিয়ে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়।

আজ রোববার এক বিবৃতিতে মহাসচিব বলেন, সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে কোনো অপশক্তিই তা বাতিল করতে পারবে না। যে দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণ মুসলমান সে দেশে কিভাবে বার বার রাষ্ট্রধর্ম ইসলামকে বাদ দেয়ার ষড়যন্ত্র করে তা আমাদের বোধগম্য নয়। যারা রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দিতে চাই তারা দেশ ও ইসলামের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। এরা দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে দেশে অশান্তি তৈরি করতে চায়। এরা দেশ ইসলাম ও জাতির শত্রু। এদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেন, কেউ ইচ্ছা করলেই সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দিতে পারবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১১ সালের সংবিধানের ৫ম সংশোধনী পাস করেন। কোনো দল বা গোষ্ঠী চাইলেও সংবিধানের মৌলিক কাঠামো সংশোধন করতে পারবে না। কেউ যদি মৌলিক কাঠামো পরিবর্তন করে তাহলে তা শাস্তি যোগ্য অপরাধ বলে বিবেচিত হবে। যারা বার বার বিষয়টি কোর্টে আলোচনা ও শুনানির চেষ্টা করছেন তাদের চক্রান্ত কোনো দিন সফল হবে না।

আগামী ১০ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে জমায়েতে শেষে শিক্ষা মন্ত্রণালয় অভিমুখে অনুষ্ঠিতব্য গণমিছিল সফলের জন্য সর্বস্তরের জনতার প্রতি আহ্বান জানান মহাসচিব।



Comments are Closed

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: