শনিবার, জুন ১৫, ২০২৪

কে কত টাকা পেলো আইপিএলে?

কে কত টাকা পেলো আইপিএলে?

দীর্ঘ ১ মাসের বেশি সময় পর শেষ হয়েছে ভারতীয় প্রিমিয়ার লীগ আইপিএল। এবারের আইপিএলে ছিলো টাকা খেলা। ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি টাকা খরচ করা হয় এবার। কোটি কোটি টাকা পুরস্কার দেয়া হয় দলগুলোকে। আর ব্যক্তি পর্যায়ে দেয়া কয়েক কোটি টাকার পুরস্কার।

গতকাল সোমবার রাতে রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে গুজরাট টাইটানসকে ষোড়শ আসরের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস। শিরোপাজয়ী সিএসকেকে প্রায় ২৬ কোটি (বাংলাদেশি) টাকার আর্থিক পুরস্কার দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। তাছাড়া অন্যান্য দল এবং খেলোয়াড়দের মিলিয়ে রেকর্ড পরিমাণ প্রাইজমানি দেয়া হয়েছে।

আইপিএলের ষোড়শ আসরে রেকর্ড ৬০ কোটি ৩১ লাখ টাকারও বেশি আর্থিক পুরস্কার দিয়েছে বিসিসিআই। যা গত বছরের অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত সবশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রাইজমানির চেয়েও বেশি। বিশ্বকাপে মোট ৬০ কোটি সাড়ে ৩ লাখ টাকা আর্থিক পুরস্কার দিয়েছিল আইসিসি।

চ্যাম্পিয়ন এমএস ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস সর্বোচ্চ ২৫ কোটি ৯৪ লাখ টাকা আর্থিক পুরস্কার পেয়েছে। রানার্সআপ গুজরাট টাইটানসের প্রাপ্তি ১৫ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। তৃতীয় স্থান অর্জন করা মুম্বই ইন্ডিয়ানস পেয়েছে ৯ কোটি ৭ লাখ টাকা। ৮ কোটি ৯৭ লাখ টাকা পেয়েছে চতুর্থ হওয়া লক্ষ্ণৌ সুপার জায়ান্টস। ফেয়ার প্লের জন্য শুধু ট্রফি পেয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস।

এবারের আসরে দুইজন ব্যাটসম্যান পাদপ্রদীপের আলোয় দারুণভাবে নিজেদের উদ্ভাসিত করেছিলেন। তাদের একজন গুজরাট টাইটান্সের শুভমান গিল। অন্যজন রাজস্থান রয়্যালসের তরুণ তুর্কি যশস্বী জয়সাল। দুজনেই পেয়েছেন পুরস্কার।

শুভমান গিল আইপিএলের এবারের আসরের সবচেয়ে মূল্যবান খেলোয়াড় (মোস্ট ভ্যালুয়াবল প্লেয়ার) হওয়ার পাশাপাশি অরেঞ্জ ক্যাপ তথা সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হয়েছেন। এছাড়া তিনি সর্বোচ্চ চার মারার পুরস্কার ও ‘গেম চেঞ্জার অব দ্য টুর্নামেন্ট’ অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন।

অন্যদিকে জয়সাল হয়েছেন টুর্নামেন্টের সেরা উদীয়মান খেলোয়াড়।

গিল ১৭ ম্যাচ খেলে ৫৯.৩৩ গড়ে রান করেছেন সর্বোচ্চ ৮৯০। হাফ সেঞ্চুরি করেছেন ৪টি। সেঞ্চুরি ৩টি। সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহ ১২৯। গুজরাটকে ব্যাক টু ব্যাক ফাইনালে তুলতে তার অবদান ছিল অসাধারণ। যদিও ফাইনালে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে পারেননি। ২০ বলে ৭ চারে খেলেন ৩৯ রানের ইনিংস।

অন্যদিকে জয়সাল ১৪ ম্যাচ খেলে ৫ হাফ সেঞ্চুরি ও ১ সেঞ্চুরিতে রান করেছেন ৬২৫টি। গড় ছিল ৪৮.০৭। সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহ ছিল অপরাজিত ১০১। অবশ্য আইপিএলে নিজেকে মেলে ধরে আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের দলে স্ট্যান্ডবাই হিসেবে জায়গা পেয়েছেন।



Comments are Closed

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: