মঙ্গলবার, জানুয়ারি ৩১, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

জাতীয় শোক দিবস ইউনিয়ন বিএনপির হামলা আহত হলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক

জাতীয় শোক দিবস ইউনিয়ন বিএনপির হামলা আহত হলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ জাতীয় শোক দিবসকে কেন্দ্র করে কলারোয়া উপজেলার ১১নং দেয়াড়া ইউনিয়নের খোর্দ বাজার আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে হামলা ভাংচুর হয়। ১৫ই আগষ্ট সোমবার সকাল ৯ঃ৪৫ মিনিটে ১১নং দেয়াড়ার খোর্দ বাজাররস্থ মেইন রোড পূনরায় মেরামতের জন্য ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মফিজুল ইসলাম মফে’র ভাই আমানুল্লাহ আমান ব্রিকস ফিল্ড থেকে নেওয়া একেবারে খারাপ মানহীণ ইট ফেলে। স্থানীয় বাসিন্দারা এবং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সেক্রেটারি আব্দুল মান্নান প্রতিবাদ করেন।প্রতিবাদের জের ধরে আমানুল্লাহ আমান সহ তার পোষ্য সন্ত্রাসী বাহিনী আব্দুল মান্নান এর উপর হামলা করে এবং ১৫ আগষ্ট শোক দিবসের ব্যানার সহ অফিসের চেয়ার ভাংচুর করে।এলাকাবাসীর নজরে থাকায় তাকে দ্রুত কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।সাংবাদিকদের সাথে আব্দুল মান্নান একথা জানান। এ সময় আব্দুল মান্নানকে দেখতে আসেন সাতক্ষীরা ১আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য এ্যাডঃ মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, সাবেক সংসদ সদস্য সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ইন্জিনিয়ার শেখ মুজিবুর রহমান, কলারোয়া উপজেলার জননন্দিত নেতা ও কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলিমুর রহমান,কলারোয়া উপজেলা পরিষদের প্যানেল মেয়র শফিউর রহমান শফি,উপজেলা মুক্তি যোদ্ধা কমান্ডার সন্তান কমিটির সাধারণ সম্পাদক মফিজুল ইসলাম লাভলু,ছাত্রলীগের উপজেলা সভাপতি শামীমুজ্জামান টিপু,সাধারণ সম্পাদক মেহেদি হাসান ফাহিম,যুবলীগ নেতা সহ আওয়ামিলীগ এর অঙ্গসংগঠনের নেত্রীবৃন্দ। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন থানা অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দীন মৃধা, তদন্ত অফিসার হাফিজুর রহমান হাফিজ সহ সংগীয় ফোর্স। এই বিষয়ে কলারোয়া থানা অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দীন মৃধা’র নিকট সাংবাদিকরা জানতে চাইলে তিনি বলেন, হামলা কারী আমানুল্লাহ আমান কে ধরার জন্য আমি ফোর্স পাঠিয়েছি। থানায় মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন বাদী এখনো মামলা করেননি।



Comments are Closed

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: